ধর্ষক সোহেল গ্রেপ্তার

0
38

ধানের শীষে ভোট দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে নোয়াখালীর সুবর্ণচরের দুর্গম এলাকায় এক গৃহবধূকে (৩২) ঘর থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ নিয়ে গ্রেপ্তারের সংখ্যা দাঁড়াল তিন জনে।বুধবার কুমিল্লার বড়ুয়া উপজেলার মহেশপুর এলাকা থেকে প্রধান আসামি মো. সোহলকে গ্রেপ্তার করে নোয়াখালী ডিবি পুলিশ। এর আগে গ্রেপ্তার হন মামলার আরও দুই আসামি। তারা হলেন-স্বপন ও বাদশা আলম প্রকাশ বাসু। বাকি ছয় আসামি এখনো পলাতক।

নোয়াখালী ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর জাকির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বুধবার বেলা সোয়া দুইটার দিকে কুমিল্লার বড়ুয়া উপজেলার মহেশপুর এলাকার একটি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাকে নিয়ে নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে রওনা হয় পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত রোববার একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের পর রাত ১২টার দিকে ঘরে ঢুকে ওই গৃহবধূকে দল বেঁধে ধর্ষণ করা হয়। এসময় তার স্বামীকে মারধর ও চার সন্তানকে বেঁধে রেখে নির্যাতন চালানো হয়। পরে ভুক্তভোগী নারীর স্বামী নয়জনকে আসামি করে মামলা করেন। গ্রেপ্তার তিন জন ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন-হানিফ, চৌধুরী, মোশাররফ, সালাহউদ্দিন, আবুল ও বেচু।

ধর্ষিতার স্বামী সিএনজি অটোরিকশাচালক বলেন, গত রোববার রাত ১০টার দিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কর্মীরা তার বাড়িতে এসে পুলিশ পরিচয়ে দরজা খুলতে বলে। তিনি দরজা খুললে তারা ঘরে ঢুকে তার হাত-পা-মুখ বেঁধে তার স্ত্রীকে ঘরের বাইরে নিয়ে ধর্ষণ করে। ভোরে তার বাড়ির পাশ থেকে স্ত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তার দাবি, ধর্ষকরা সবাই আওয়ামী লীগের কর্মী। তার স্ত্রী ধানের শীষে ভোট দিয়েছিল বলে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা তাকে ধর্ষণ করেছে।

এদিকে, বুধবার (০২ডিসেম্বর) সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের বিদায়ী হাইকমিশনার হর্ষবর্ধণ শ্রিংলার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ধানের শীষে ভোট দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে নোয়াখালীর সুবর্ণচরের দুর্গম এলাকায় এক গৃহবধূকে (৩২) ঘর থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা হবে। কেউ রেহাই পাবে না।