প্রবৃদ্ধি ছাড়াচ্ছে রেকর্ড ৮ শতাংশ

0
112

চলতি অর্থবছরের উন্নয়ন কর্মসূচি থেকে ছেঁটে ফেলা হয়েছে ৮ হাজার কোটি টাকা। ফলে সংশোধিত আকার দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকায়। সেই সঙ্গে প্রথমবারের মত ৮ শতাংশের ঘর ছাড়িয়ে যাবে প্রবৃদ্ধি। আর এবার বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে ১ হাজার ৯০৯ ডলারে পৌঁছাবে বলে আশা করছে সরকার।

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভা শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

চলতি অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদন প্রথমবারের মত ৮ শতাংশের ঘর ছাড়িয়ে যাবে বলে প্রাক্কলন করেছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

অর্থমন্ত্রী জানান, চলতি অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ। মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে এক হাজার ৯০৯ ডলার। জিডিপি-বিনিয়োগ অনুপাতে অগ্রগতি হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রাক্কলন অনুযায়ী চলতি অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) আকার দাঁড়াবে প্রায় ২৫ লাখ ৩৬ হাজার ১৭৭ কোটি টাকায়। গত অর্থবছরে জিডিপির আকার ছিল ২২ লাখ ৫০ হাজার ৪৭৯ কোটি টাকা।’

সভায় প্রকল্প নজরদারির জন্যে বিভাগীয় শহরগুলোতে আইএমইডির অফিস চালুর জন্য প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন দিয়েছেন বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।

পরিকল্পনা কমিশন জানায়, পদ্মা সেতু ও তার রেল সংযোগ, মেট্রোরেল, পায়রা বন্দরসহ কয়েকটি বড় প্রকল্প থেকে বরাদ্দ কমছে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে পদ্মা সেতু প্রকল্প থেকেই প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা ফেরত আসছে। তবে অর্থ খরচের প্রবণতা থাকায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য বাড়তি ২১৪ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হতে পারে।

সভায় স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার প্রায় নয় হাজার ছয়শ কোটি টাকার সংশোধিত এডিপি আলাদাভাবে অনুমোদন দেয়া হয়। সংশোধিত এডিপিতে প্রকল্প এক হাজার ৯১৬টি।

সভা শেষে জানানো হয়, চলতি অর্থবছরের আট মাসে এডিপি বাস্তবায়নে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৭১ হাজার কোটি টাকা।