নড়াইলের উন্নয়নে মন্ত্রণালয়ে মাশরাফির দৌড়ঝাঁপ

0
104

আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপের আগে এলাকার উন্নয়নে ব্যস্ত সময় পার করছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ।

কখনও দেশে, কখনও দেশের বাইরে খেলা নিয়েই বেশিরভাগ সময় ব্যস্ত থাকেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। কিন্তু তাই বলে এমপি হিসেবে এলাকার উন্নয়নে নিজ দায়িত্ব ভুলে যাননি। এ কারণে শত ব্যস্ততার মধ্যেও ঠিকই নিজ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নে দৌড়ঝাঁপ করছেন বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে। দেখা করছেন মন্ত্রীর সঙ্গে। এ রকম একাধিক মন্ত্রীর সঙ্গে মাশরাফির দেখা করার ছবি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপের আগে এলাকার উন্নয়নে ব্যস্ত সময় পার করছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ।

কখনও দেশে, কখনও দেশের বাইরে খেলা নিয়েই বেশিরভাগ সময় ব্যস্ত থাকেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। কিন্তু তাই বলে এমপি হিসেবে এলাকার উন্নয়নে নিজ দায়িত্ব ভুলে যাননি। এ কারণে শত ব্যস্ততার মধ্যেও ঠিকই নিজ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নে দৌড়ঝাঁপ করছেন বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে। দেখা করছেন মন্ত্রীর সঙ্গে। এ রকম একাধিক মন্ত্রীর সঙ্গে মাশরাফির দেখা করার ছবি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ছবিতে দেখা যায়, মাশরাফি বিন মর্তুজা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও স্থানীয় সরকার, সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যর সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন। ফেসবুকে এমন ছবি পোস্ট করা হলে মাশরাফিকে অভিনন্দন জানান অনেকে।

এ সময় মাশরাফির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সৌমেন চন্দ্র বসু। তিনি জানান, ‘এলজিইডি প্রতিমন্ত্রীর কাছে নড়াইলের ১৬০টি মাটির রাস্তা উন্নয়নের তালিকা দিয়েছেন মাশরাফি। ইতোমধ্যে ৭০টিকে পাকা করার অনুমোদন হয়েছে। এছাড়া এলজিইডি অফিসের অধীনে প্রায় ২০ কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দ প্রদান করা হচ্ছে।’

সৌমেন চন্দ্র জানান, ‘নড়াইল পৌরসভার জরাজীর্ণ ভবনের স্থলে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মাশরাফিকে আশ্বস্ত করেছেন প্রতিমন্ত্রী। এ সময় তিনি (প্রতিমন্ত্রী) লোহাগড়া বাজারের চলাচলের অনুপোযোগী সড়কগুলোর বিষয়ে প্রকল্প তৈরি করে জমা দেয়ার জন্য মাশরাফিকে অনুরোধ করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তিনটি পুকুর পাড়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। শেখ রাসেল সেতু থেকে এস এম সুলতান সেতু পর্যন্ত ওয়ার্কওয়ে নির্মাণের জন্য দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে খুলনা-যশোর অঞ্চলের উন্নয়ন প্রকল্পে নড়াইল জেলাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

সৌমেন চন্দ্র বলেন, নড়াইলে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের জন্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে দাবি জানিয়েছেন মাশরাফি। শিক্ষামন্ত্রী এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ভবন ও মাদরাসার উন্নয়নের জন্য মন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি (মাশরাফি)।

মাশরাফি বিন মর্তুজা জানান, সামনে বিশ্বকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। সেজন্য খুবই ব্যস্ত আছি, কিন্তু নির্বাচনের সময় এলাকার বিভিন্ন স্থান ঘুরে বুঝেছি এখানে অনেক উন্নয়ন প্রয়োজন। তাই সুযোগ পেলে দেশের পাশাপাশি নড়াইলের জন্য কাজ করছি।

ছবিতে দেখা যায়, মাশরাফি বিন মর্তুজা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও স্থানীয় সরকার, সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যর সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেন। ফেসবুকে এমন ছবি পোস্ট করা হলে মাশরাফিকে অভিনন্দন জানান অনেকে।

এ সময় মাশরাফির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সৌমেন চন্দ্র বসু। তিনি জানান, ‘এলজিইডি প্রতিমন্ত্রীর কাছে নড়াইলের ১৬০টি মাটির রাস্তা উন্নয়নের তালিকা দিয়েছেন মাশরাফি। ইতোমধ্যে ৭০টিকে পাকা করার অনুমোদন হয়েছে। এছাড়া এলজিইডি অফিসের অধীনে প্রায় ২০ কোটি টাকার বিশেষ বরাদ্দ প্রদান করা হচ্ছে।’

সৌমেন চন্দ্র জানান, ‘নড়াইল পৌরসভার জরাজীর্ণ ভবনের স্থলে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মাশরাফিকে আশ্বস্ত করেছেন প্রতিমন্ত্রী। এ সময় তিনি (প্রতিমন্ত্রী) লোহাগড়া বাজারের চলাচলের অনুপোযোগী সড়কগুলোর বিষয়ে প্রকল্প তৈরি করে জমা দেয়ার জন্য মাশরাফিকে অনুরোধ করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘তিনটি পুকুর পাড়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। শেখ রাসেল সেতু থেকে এস এম সুলতান সেতু পর্যন্ত ওয়ার্কওয়ে নির্মাণের জন্য দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। সেই সঙ্গে খুলনা-যশোর অঞ্চলের উন্নয়ন প্রকল্পে নড়াইল জেলাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

সৌমেন চন্দ্র বলেন, নড়াইলে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের জন্য শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে দাবি জানিয়েছেন মাশরাফি। শিক্ষামন্ত্রী এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ভবন ও মাদরাসার উন্নয়নের জন্য মন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি (মাশরাফি)।

মাশরাফি বিন মর্তুজা জানান, সামনে বিশ্বকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। সেজন্য খুবই ব্যস্ত আছি, কিন্তু নির্বাচনের সময় এলাকার বিভিন্ন স্থান ঘুরে বুঝেছি এখানে অনেক উন্নয়ন প্রয়োজন। তাই সুযোগ পেলে দেশের পাশাপাশি নড়াইলের জন্য কাজ করছি।