খাজুরায় প্রতারক চক্র বেপরোয়া : কনে দেখতে এসে অভিনব কায়দায় দুই পরিবারের সর্বস্ব লুট

0
53

যশোরের খাজুরায় বিয়ের কনে দেখতে এসে অভিনব কায়দায় দুইটি পরিবারের সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেছে একটি প্রতারক চক্র। বর্তমানে চক্রটি ওই এলাকায় বেশ তৎপর হয়ে উঠেছে। তারা বিভিন্ন গ্রামে বাড়ীতে গিয়ে সহজ-সরল সাধারণ মানুষকে এ প্রতারণার ফাঁদে ফেলছে। গেল সপ্তাহে দুই দিনের ব্যবধানে দুইটি বাড়ীতে ঢুকে কনে দেখার ছলে তারা দুই ভরি স্বর্ণ ও তিন লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে।

গত বুধবার (০৮এপ্রিল) সদর উপজেলার খাজুরার লেবুতলা ইউনিয়নের এনায়েতপুর গ্রামে একটি পরিবার এই চক্রের ফাঁদে পড়ে সর্বস্ব হারিয়েছে। চক্রটি এ সময় ওই বাড়ীর ঘরের আলমারীর ড্রয়ারে রাখা ২ জোড়া কানের দুল, ২টি আংটি ও নগদ ৯৭ হাজার টাকা নিয়ে সটকে পড়ে।

ঘটনার শিকার পরিবারটির সাথে কথা বলে জানা যায়, বুধবার সকাল ১১টার দিকে একই ইউনিয়নের শর্শুনাদহ গ্রামের পেশাদার ঘটক জালাল উদ্দীনের সাথে একটি পালসার মটর সাইকেল যোগে সুদর্শন ও আভিজাত্যের ছাপ সম্পন্ন এক ছেলে আসে। বাড়ীতে বিবাহযোগ্য কন্যা থাকায় তাদেরকে সম্মানের সাথে বসতে দেয় বাড়ীর মহিলারা। খবর পেয়ে কনের পিতা মাঠ থেকে বাড়ী এসে তাদের সাথে কথাবার্তা বলে। এসময় ঘটকের মাধ্যমে ছেলে তাদের কন্যাকে পছন্দ হয়েছে বলে জানালে তারাও ছেলেকে পছন্দ করে। এদিন বিকালেই বিয়ে হবে শুরু হচ্ছে বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতা। এই সুযোগে ওই ছেলে অভিনব কৌশল অবলম্বন করে বাড়ীর সবাইকে ঘর থেকে বের দেয়। প্রথমে মেয়ের বাবাকে বলে মাঠ থেকে এসেছেন যান গোসল করে আসুন। মাকে বলেন নতুন কাপড় পরুন এবং ঘটককে বলে হাই প্রেশারের রোগী আপনি আরেকবার গোসল করে আসুন। সবশেষে ঘরে ছিল ওই বাড়ীর বড় ছেলের বউ। তাকে ঠান্ডা পানি আনতে বলে এই সুযোগে প্রতারক পাত্র ঘরের আলমারীর ভেতরে থালাবাটির ভেতরে থাকা চাবি বের করে ড্রয়ারে থাকা ২ জোড়া কানের দুল, ২টি আংটি, নগদ ৯৭ হাজার টাকাসহ ব্যাংকের চেক বই নিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে উঠানে আসে। ওঠান থেকে পানি খেয়ে পাত্র তার বাড়ীর লোকদেরকে এগিয়ে আনার কথা বলে তাদের বাড়ী থেকে সরে পড়ে।

এদিকে বউ মা ঘরে পানির গ্লাস রাখতে গিয়ে আলমারি খোলা এবং ড্রয়ারে রাখা সোনা, টাকা নেই দেখে চিৎকার করলে সবাই ছুটে আসে। অবস্থা বেগতিক দেখে ঘটক পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে পার্শ্ববর্তী আগরাইল মাঠ থেকে ধরে আনে। পরে ঘটকের গ্রামের মেম্বারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এসে একটি সমযোতার মাধ্যমে তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে ঘটক জালালের সাথে কথা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবী করেন বলেন, ঘটনার ২দিন আগে সোমবার পালসার মটর সাইকেল যোগে রিপন নামে একজন সুদর্শন যুবক তার কাছে আসে। সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে এবং যশোর শহরের পালবাড়ী এলাকায় তার বাড়ী বলে জানায়। নিজের বিয়ের জন্য একটা ভাল মেয়ের খোঁজে আসে। পরে ঘটক বিবাহযোগ্য মেয়ের খোঁজ পেয়ে বুধবার সকাল ১১টায় পাত্রকে সাথে নিয়ে সরল মনে এনায়েতপুর গ্রামের ওই বাড়ীতে আসে।

এদিকে এ ঘটনার দুই দিন আগে সোমবার খাজুরার জহুরপুর ইউনিয়নের খালিয়া রাজাপুর গ্রামে এক বাড়ীতে এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে। প্রতারক চক্রটি ওই বাড়ীর সবাইকে বোকা বানিয়ে নগদ ২ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে চলে যায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.