বিশ্ব গণমাধ্যমের শীর্ষ খবরে নুসরাত হত্যার রায়

0
49

বিশ্বের শীর্ষ সব সংবাদ মাধ্যমে উঠে এসেছে ফেনীর মদ্রাসাছাত্রী নুসরাত হত্যার রায়। আজ বৃহস্পতিবার মামলার রায় ঘোষণার পরপরই রয়টার্স, বিবিসি, আল-জাজিরা, ফক্সনিউজ, এনডিটিভি, চ্যানেল নিউজ এশিয়া, অনলাইন সংস্করণে একেবারে শীর্ষে উঠে এসেছে বাংলাদেশের এই মামলার রায়।

বিবিসি শিরোনাম করেছে, ‘নুসরাত জাহান রাফি: আগুনে পুড়িয়ে হত্যায় ১৬ হত্যাকারীর ফাসির রায়’। আদালত যে দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই রায় দিয়েছে সেটাও উল্লেখ করেছে তারা। খবরে বলা হয়েছে, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও নুসরাতের দুই নারী সহপাঠীও এই হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের আদালতের দ্রুততম রায়গুলোর মধ্যে এটি একটি। আসামিরা উচ্চ আদালতে আপিলের কথা জানিয়েছেন।

রয়টার্সের শিরোনাম, ‘বাংলাদেশে হয়রানির পর কিশোরীকে হত্যার মামলায় ১৬ জনের মৃত্যুদণ্ডের রায়’। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ধর্মীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদ করায় কিশোরী নুসরাতকে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত অধ্যক্ষসহ ১৬ জনকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাক্ষাৎ ও দোষীদের বিচারের যে আশ্বাস দিয়েছিলেন সেটাও উল্লেখ করেছে রয়টার্স।

আল-জাজিরা শিরোনাম করেছে, ‘নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় বাংলাদেশে ১৬ জনের মৃত্যুদণ্ড’। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করায় নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। নুসরাতের বাবার বক্তব্যও প্রকাশ করেছে তারা। ‘আমার মেয়েকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে তা পুরো দেশ দেখেছে। তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় তাকে এই পরিণতি ভোগ করতে হয়েছিল,’।

ফক্স নিউজের শিরোনাম ‘নুসরাত জাহান রাফি হত্যায় ১৬ জনের মৃত্যুদণ্ড’। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বছরের শুরুতে দগ্ধ হওয়া কিশোরী হত্যার অভিযোগে অভিযুক্ত মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ ১৬ জনকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছে। ঢাকার বাইরের একটি ছোট্ট শহরে নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যু গোটা দেশকে হতবাক করেছিল।

এনডিটিভির শিরোনামে বলা হয়, ‘বাংলাদেশে ১৯ বছরের নারীকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় ১৬ আসামির ফাঁসি’। সংবাদে বলা হয়েছে, নুসরাতকে হত্যা সারাদেশে প্রতিবাদের ঝড় তুলেছে বলে সংবাদে তথ্য দেওয়া হয়। মামলার কৌঁসুলি হাফিজ আহমেদ বলেন, এই রায় এটাই প্রমাণ করে বাংলাদেশে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে কেউ নিষ্কৃতি পাবে না। বাংলাদেশে আইনের শাসন রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.