৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি, পদ ২১৩৫

0
72

চলতি বছরের নভেম্বর মাসে ৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনে (পিএসসি)। এই বিসিএস হবে সাধারণ (জেনারেল)। এই বিসিএসে নেয়া হবে ২ হাজার ১৩৫ জনকে। আবেদনপত্রের পুরো প্রক্রিয়া হবে অনলাইনে। বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পিএসসির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক এ বিষয়ে বলেন, কাজ চলছে, নভেম্বরের মধ্যে ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হতে পারে। আমরা ২ হাজার জনের বেশি বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের জন্য সুপারিশ পেয়েছি। ৪১তম বিসিএস সাধারণ পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। দ্রুত এ বিষয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পিএসসির একজন সদস্য জানান, ৪১তম বিসিএস পরীক্ষা আয়োজনে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করা শুরু হবে।

পিএসসি ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে পিএসসি নির্দেশনা পেয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চাহিদাপত্রও তারা হাতে পেয়েছে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে এ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার চূড়ান্ত অবস্থানে রয়েছে পিএসসি।

জানা গেছে, ৪১তম বিসিএসে সবচেয়ে বেশি নেয়া হবে শিক্ষা ক্যাডারে। এ ক্যাডারে ৯১৫ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে। এর মধ্যে বিসিএস শিক্ষাতে প্রভাষক ৯০৫ জন, কারিগরি শিক্ষা বিভাগে প্রভাষক ১০ জন নেয়া হবে। শিক্ষার পরে বেশি নিয়োগ হবে প্রশাসন ক্যাডারে। প্রশাসনে ৩২৩ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে। পুলিশে ১০০, বিসিএস স্বাস্থ্যতে সহকারী সার্জন ১১০ জন ও সহকারী ডেন্টাল সার্জন ৩০ জনকে নেয়া হবে। এছাড়া পররাষ্ট্রে ২৫ জন, আনসারে ২৩ জন, অর্থ মন্ত্রণালয়ে সহকারী মহাহিসাবরক্ষক (নিরীক্ষা ও হিসাব) ২৫ জন, সহকারী কর কমিশনার (কর) ৬০ জন, সহকারী কমিশনার (শুল্ক ও আবগারি) ২৩ জন ও সহকারী নিবন্ধক ৮ জন নেয়া হবে।

পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগে পরিসংখ্যান কর্মকর্তা ১২ জন, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে সহকারী যন্ত্র প্রকৌশলী ৪ জন, সহকারী ট্রাফিক সুপারিনটেনডেন্ট ১ জন, সহকারী সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক ১ জন, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) ২০ জন, সহকারী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) ৩ জন নেয়া হবে।

তথ্য মন্ত্রণালয়ে সহকারী পরিচালক বা তথ্য কর্মকর্তা বা গবেষণা কর্মকর্তা ২২ জন, সহকারী পরিচালক (অনুষ্ঠান) ১১ জন, সহকারী বার্তা নিয়ন্ত্রক ৫ জন, সহকারী বেতার প্রকৌশলী ৯ জন, স্থানীয় সরকার বিভাগে সহকারী প্রকৌশলী ৩৬ জন, সহকারী বন সংরক্ষক ২০ জন।

সহকারী পোস্ট মাস্টার জেনারেল পদে ২ জন, বিসিএস মৎস্যতে ১৫ জন, পশুসম্পদে ৭৬ জন, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ১৮৩ জন ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ৬ জন, বিসিএস বাণিজ্যে সহকারী নিয়ন্ত্রক ৪ জন।

এছাড়া পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ৪ জন, বিসিএস খাদ্যে সহকারী খাদ্য নিয়ন্ত্রক ৬ জন ও সহকারী রক্ষণ প্রকৌশলী ২ জন, বিসিএস গণপূর্তে সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) ৩৬ জন ও সহকারী প্রকৌশলী (ই/এম) ১৫ জনসহ মোট ২ হাজার ১৩৫ জন কর্মকর্তাকে ৪১তম বিসিএসে নিয়োগ দেয়া হবে।

৪০তম বিসিএসের জন্য গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি। ৪০তম বিসিএসের আবেদন গ্রহণ শুরু হয় ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে। এতে আবেদন করেন ৪ লাখ ১২ হাজার ৫৩২ জন প্রার্থী। এই বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ৩ মে। ২৫ জুলাই প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়। ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় পাস করছেন ২০ হাজার ২৭৭ জন প্রার্থী। এই বিসিএসে মোট ১ হাজার ৯০৩ জন ক্যাডার নিয়োগ দেয়ার কথা রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.